মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

গুলশাখালী ইউনিয়নের ইতিহাস

কাচালং নদী ও পাহাড়িছড়া সৌন্দর্যের লীলাভূমি রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলার লংগদু উপজেলাধীন ৩নং গুলশাখালী ইউনিয়ন। নদী  ছোট ছোট উপ-নদী দ্বারা বিশিষ্ট একটি বৈচিত্রময়  জন পদ যেখানে, চাকমা ও বাঙ্গালী ০২টি জনগোষ্ঠির বসবাস। উল্লেখ্য এখানে কিছু তঞ্চঙ্গ্যা ও রাখাইন সম্প্রদায়ের বসবাসরয়েছে। ভৌগলিক বৈচিত্রময় সৌন্দর্য এবং বিভিন্ন ধর্ম, বর্ণ, ভাষা, সংস্কৃতির সম্মিলন যোগ করেছে এক ভিন্নমাত্রা। ৩নং গুলশাখালী ইউনিয়নের নামকরণের পেছনে কোন ঐতিহাসিক ব্যাখ্যা পাওয়া যায়না।মাইনীমুখ ইউনিয়নের উত্তরে কালাপাকুজ্যা ইউনিয়ন, পশ্চিম- লংগদু ইউনিয়ন,ও মাইনীমুখ, দক্ষিণে- বগাচতর ইউনিয়নএবং দক্ষিণ নানিয়াররচর উপজেলা অবস্থিত। জানাযায়, ১৮০০ খ্রিস্টাব্দের পূর্বে অঞ্চলটি প্রধানত ত্রিপুরাদের আবাসস্থল ছিল।এইউনিয়নেরসুবিস্তৃত হ্রদ দেশি-বিদেশি পর্যটকদের যুগপৎ আকৃষ্ট করে।রাঙ্গামাটিজেলারলংগদুউপজেলাধীন৬নং মাইনীমুখ ইউনিয়নের জনগোষ্ঠীর তথ্য প্রাপ্তি সুযোগকে তরান্বিত করতে এবং বর্তমান সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার অঙ্গীকারকে বাস্তবায়ন করার নিরিখে এইউনিয়ন তথ্য বাতায়ন তৈরীর প্রয়াস যুগিয়েছে। ইউনিয়নের এ তথ্য বাতায়নকে আরও বেশি তথ্য বহুল করার জন্য ইউনিয়নের সর্বস্তরের জনগণের সহযোগিতা একান্তকাম্য।ইউনিয়নের প্রয়োজনীয় তথ্যাদিসম্বলিতএইবাতায়নেরমাধ্যমে এত টুকু উপকৃত হলে গুলশাখালী ইউনিয়ন পরিষদ এরউদ্দেশ্য সার্থক হবে এবং সে সাথে সকলকে এই তথ্য বাতায়নে সু-স্বাগতম।


Share with :

Facebook Twitter